পরশুরামে হামলা থেকে ভিআইপি ,দলীয় নেতাকর্মী কেউ বাদ যাচ্ছেনা!

সৈয়দ নিজাম উদ্দিন সজিব:-

৮ আগস্ট ২০১৯

ঢাকা স্টক একচেঞ্জ’র বারবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও পরিচালক, পরশুরাম উপজেলার মির্জানগর ইউনিয়নের আশ্রাফপুর গ্রামের কৃতি সন্তান  ফেনীর উত্তরঅঞ্চলের শ্রেষ্ট দানবীর আলহাজ রকিবুর রহমানও হামলার স্বীকার হয়েছেন।    ২০/৩০ জন দুর্বিত্ত তার বাড়ীতে উপস্থিত হয়ে তাঁকে মারধর করে তাঁর ব্যাবহৃত ও তাঁর বাড়িতে বেড়াতে আসা আত্বীয় স্বজনের ১৫/২০টি গাড়ি ভাংচুর করে। পরে ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন  হাজারীর সহযোগিতায় র‌্যাব তাঁকে উদ্বার করে চৌদ্দগ্রাম পর্যন্ত পৌছে দেয়।

একই ভাবে ২০১৬ সালের ৬ মে পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রকিব হায়দারকে  চিথলিয়া আইডিয়াল স্কুলের সামনে তুচ্ছ ঘটনায় নির্মম ভাবে পিঠিয়ে আহত করে, ওই ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়।

 পরশুরাম থানার তৎকালিন ওসি হিসাংশুকে অপমান জনক ভাবে বিতারিত করে, তার বিরোদ্বে বিভিন্ন মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে তাঁকে পরশুরাম ছাড়তে বাধ্য করে।

উপজেলা নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি একটি গাড়ি বহর চিথলিয়া দিয়ে ঢুকার পর তাদেরকে মোবাইল কোটের মাধ্যমে বাঁধা  না দেয়ায় তৎকালীন ইউএনও মনোয়ারা বেগম কে তার অফিসে গিয়ে লাঞ্চিত করেন।

 ২০১৪ সালের উপজেলার পরিষদ নির্বাচনে  উপজেলা পরিষদ রোডে আওয়ামীলীগ-বিএনপির সংঘর্ষের ঘটনায় ৯০ জনকে আসামী করে  ৫টি মামলা দায়ের করেন। কিন্তু ওই ঘটনায়  স্থানীয় শিবির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত সাংবাদিক সংগ্রাম পত্রিকার প্রতিনিধি  এম এ হাসান কে দুটি নাশকতা মামলায় আসামী করে। ওই মামলায় হাসান ৯০দিন জেল হাজতে দিন কাটতে  হয়। একই ভাবে স্থানীয় আরেক সাংবাদিক মাহবুবুল হক মাহবুব পল্লী বিদু্যুত সমিতির পরিচালক পদে নির্বাচনে প্রতিদন্ধিতায় করায় তাঁকে লাঞ্চিত করে পরে তিনি এলাকা ছেড়ে যেতে বাধ্য হয়।

 মির্জানগর ইউনিয়নে ছাত্রলীগ নেতা ফারুখ একাধিক মামলার আসামী হয়ে বর্তমানে এলাকা ছাড়া, মির্জানগর ইউনিয়নের ত্যাগি আওয়ামীলীগ দলীয় কর্মীদের হাতে নৃগীত হয়ে বর্তমানে প্রবাস জীবন যাপন অথবা নিষ্কিয় ভাবে পড়ে রয়েছে মিরু সহ একাধিক জন সরকার সমর্থক। পরশুরাম উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কালিকাপুর গ্রামের মেম্বার মহিউদ্দিন ছুট্টেুাকে বিসমিল্লা ফিসারিজ’ স্বর্তাধিকারী গ্রামের এক ইমামকে কে কেন্দ্র করে মুনাফের ইন্ধনে পরশুরাম কার্তিক বাবুর দোকানের সামনে পিঠিয়ে গুরতর আহত করার ঘটনা ঘটে। উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মির্জানগর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক  চেয়ারম্যান ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান   আলি আকবর ভুইয়ার ছেলে ইলেক্টনিক্স দোকানের স্বর্তাধিকারী পিংকুকে ডিস ব্যবসার বিরোধের জের ধরে এনএসসি ব্যাংকের সামনে তার ইলেক্টনিক্স দোকান থেকে বেড় করে লোহার রড দিয়ে পিঠিয়ে গুরতর আহত করে বলে পিংকু অভিযোগ করেন। ঢাকার বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী হালিমা খাতুন বৃত্তি পরীক্ষার পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠানে মাদকের বিরোদ্বে বক্তব্য দেয়ায়  অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঢাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী কামাল উদ্দিন সাজুকে লাঞ্চিত করে। একটি রাজপরিবারের পারিবারিক সাংবাদিক হিসাবে পরিচিত স্থানীয় সাংবাদিক আবু ইউসুফ মিন্টুকে গত ৩ আগষ্ট মন্ত্রী ও দলীয় নেতাকর্মী, প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে ত্রান বিতরণ অনুষ্ঠানের শেষের দিকে ৭/৮ জন সন্ত্রাসী পিঠিয়ে গুরতর আহত করে, বর্তমানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।

পরশুরাম উপজেলার এক হিন্দু নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন

 পরশুরাম পাইলট হাইস্কুলের অবসর  প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক দিপ্তী লাল বাবুকে অজ্ঞাত কারনে হয়রানি করে যাচ্ছে।  বাড়ীতে পুলিশ পাঠিয়ে হয়রানি ও মামলা দেয়ার ভয় দেখিয়ে দেখায়। পুলিশের ভয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে  চট্রগ্রামের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বাজারের কাপড়  ব্যবসায়ীর দোকানে গিয়ে ঘন ঘন পুলিশ পাঠিয়ে হয়রানির অভিযোগ করেছেন হিন্দু সম্পাদায়ের নেতারা। উত্তর বাজারের বিমল হাজারিকে হামলা মামলা দিয়ে নিঃস্ব করে দিয়েছে। এছাড়াও হিন্দু বৈদ্য খিস্টান ঐক্য পরিষদের ফেনীর নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক নেতা জানান পাইলট হাইস্কুলের কর্মচারী অমল, ঠিকাদার শিবু,আওয়ামীীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অনাদি রঞ্জন সাহা, অসংখ্য হিন্দুকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করা হয়েছে। আওয়াীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেনকে তার ভাইয়ের সাথে বিরোধ কে কাজে লাগিয়ে স্থানীয় একাটি সালিশে কতিপয় যুবক দিয়ে মারধর করায় করে জাকিরকে আহত করে, উল্টা জাকিরের বিরোদ্বে থানায় মামলা দিয়ে হয়রানি করায় পরে তিনি ষ্টোক করে মারা যান। বক্সমাহমুদ ইউনিয়নের কাদের মেম্বার , খন্দোকিয়া রিপন সহ অষংখ্য দলীয় নেতাকর্মী নিজ দলীয় নেতাদের হাতে নিগৃত হয়েছেন। জৈনেক মুক্তিযোদ্বার জানান বিনা কারনে বিনা অজুহাতে বর্তমান থানার পুলিশ দিয়ে প্রায় প্রতিরাতে কাউকে না কাউকে থানায় নিয়ে আটকে রাখে। সর্বশেষ নারী কেলেংকারি ঘটনায় স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি কসুমকে ধরে নিয়ে একরাত আটকে রাখে পুলিশ পর দিন মত বিনিময় সভার কারনে ছেড়ে দেয়। এররকম উপজেলার সরকার সমর্থক অষংখ্য ব্যাক্তিকে শারিরিক ও মানসিক ভাবে হয়রানির ঘটনা ঘটেছে।

Share and Enjoy

  • Facebook
  • Twitter
  • Delicious
  • LinkedIn
  • StumbleUpon
  • Add to favorites
  • Email
  • RSS





Related News

  • পরশুরামে আওয়ামীলীগ নেতার হাতে মার খেয়ে অপমানে কৃষকের আত্বহত্যা
  • পরশুরামে ৩ নভেম্বর জেলহত্যা দিবস পালন
  • পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসাবে ইয়াছমিন আকতারের যোগদান
  • সম্রাটের উপর কিছুটা নমনীয় হচ্ছেন সরকারের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী মহল
  • সম্রাটের মুক্তির জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ছোট বোন ফারহানা চৌধুরী শিরিন
  • পরশুরাম উপজেলা আ’লীগে কামাল-সভাপতি, সাজেল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত
  • নাসিম ভাই এখনো আমাদের অভিভাবক
  • নাসিম ভাই এখনো আমাদের অভিভাবক
  • Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
    Email
    Print